বাংলালিংক আইটি ইনকিউবেটর ২.০-এর জমকালো গ্র্যান্ড গালা অনুষ্ঠিত

সেরা ছয়টি ডিজিটাল স্টার্টআপ পাচ্ছে অবকাঠামো, উপকরণ ও প্রশিক্ষণগত সহায়তা

ঢাকা, ১২ জুলাই, ২০১৮: বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় ডিজিটাল উদ্যোক্তাদের ক্রমবিকাশের লক্ষ্যে বাংলালিংক ও বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক অথোরিটি কর্তৃক গৃহীত যৌথ উদ্যোগ “আইটি ইনকিউবেটর ২,০”-এর গ্র্যান্ড গালা রাজধানীর লা মেরিডেয়ানে উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই বিশেষ অনুষ্ঠানে আইটি ইনকিউবেটর-এ অংশগ্রহণকারী সেরা ছয় ডিজিটাল স্টার্টআপের নাম ঘোষণা করা হয়। এই ঘোষণার মাধ্যমে দেশের সেরা আইটি বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে দীর্ঘ সময় ধরে পরিচালিত আইটি ইনকিউবেটরের বাছাই পর্ব সফলভাবে সমাপ্ত হয়েছে। বিশেষ এই আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বাংলালিংক-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরিক অস, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক অথোরিটির ম্যানেজিং ডিরেক্টর হোসনে আরা বেগম ও প্রতিষ্ঠান দুইটির অন্যান্য উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ।

ডিজিটাল উদ্যোগের অভিনবত্ব ও ব্যবসায়িক সম্ভাবনার ভিত্তিতে অংশগ্রহণকারী প্রায় ২০০ ডিজিটাল স্টার্টআপ থেকে বেছে নেওয়া হয়েছে সেরা ছয়টিকে, যেগুলি এক বছরের জন্য কাওরান বাজারে অবস্থিত জনতা টাওয়ারের আইটি ইসকিউবেটরে অবকাঠামো, উপকরণ ও প্রশিক্ষণ পাবেন। নির্বাচিত ৬টি ডিজিটাল স্টার্টআপ জিনি আইওটি, ছবির বাক্স, হোমফুডস.কো, পার্কলি, টিচ ইট এবং ইজি সেন্স যথাক্রমে এআই-ভিত্তিক স্মার্ট অ্যাপলায়েন্সেস, ফটোগ্রাফি মার্কেটপ্লেস, অনলাইন ফুড ডেলিভারি, কার-পার্কিং সল্যুশনস, ই-লার্নিং এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল আইওটি নিয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

আইটি ইনকিউবেটর বাংলালিংক-এর স্বত্ত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান ভিওনের ফ্ল্যাগশিপ কর্পোরেট রেসপন্সিবিলিটি প্রোগ্রাম “মেক ইওর মার্ক”-এর অন্তর্ভুক্ত। বিশ্বের যেসব স্থান ভিওনের কার্যক্রমের আওতাধীন, সেসব স্থানের আইটি খাতের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে প্রতিষ্ঠানটি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক অথোরিটির ম্যানেজিং ডিরেক্টর হোসনে আরা বেগম বলেন, “ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য আমাদের এমন উদ্যমী তরুণ উদ্যোক্তাদের প্রয়োজন যারা নিজেদের প্রচেষ্টায় কিছু সৃষ্টি করার স্বপ্ন লালন করে। আমরা যদি তাদের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা প্রদান করতে পারি, তাহলে ভবিষ্যতে তারা দেশের উন্নয়নের সড়ক বিনির্মাণে সমর্থ হবে। আমাদের বিকাশমান আইসিটি খাতের স্বার্থে আইটি ইনকিউবেটরের মতো একটি দৃষ্টান্তমূলক পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য আমি বাংলালিংক-কে ধন্যবাদ জানাই।“

বাংলালিংক-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরিক অস বলেন, “বাংলালিংক এই বিশেষ উদ্যোগের অংশ হতে পেরে অত্যন্ত গর্বিত। আইটি ইনকিউবেটর সম্ভাবনাময় ডিজিটাল স্টার্টআপগুলির জন্য প্রয়োজনীয় একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। দেশের অন্যতম প্রধান ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমরা প্রতিভাবান ডিজিটাল উদ্যোক্তাদের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের উদ্ভাবনী পরিকল্পনাকে সফল উদ্যোগে পরিণত করার ক্ষেত্রে সাহায্য করতে চাই। ভবিষ্যতে সরকারের সাথে আমাদের অংশদারিত্ব দৃঢ়তর করে আমরা তাদের উন্নয়নের জন্য আরও উদ্যোগ গ্রহণ করতে চাই।”

২০১৬ সালের জুলাই মাসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ ও ইন্টারন্যাশনাল টেলিকম্যুনিকেশনস্ ইউনিয়নের সেক্রেটারি জেনারেল হওলিন ঝাও আইটি ইনকিউবেটর উদ্বোধন করেন।